মুখে দুর্গন্ধ হলে যা করবেন।

ধরুন, অফিসের কোনও গুরত্বপূর্ণ মিটিংয়ে আপনার পাশে বসেছেন বস। কিন্তু ক্রমাগত একটা বিচ্ছিরি গন্ধ নাকে আসছে। কোথা থেকে আসছে, তা নিজেও বুঝতে পাচ্ছেন। কিন্তু কিছু করার থাকছে না। এমন পরিস্থিতি কী করবেন? মুখের গন্ধ খুবই বিব্রতকর সমস্যা। দিনে দুবার ব্রাশ করলেও মুখ থেকে দুর্গন্ধ যায় না। কারন, নানা রকম খাবার খাওয়ার কারণে মুখের মধ্যে ব্যাকটেরিয়ার সৃষ্টি হয়। কিন্তু এমন কিছু খাবার আছে, যেগুলি নিমেষেই মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে পারে।

পানি : মুখে দুর্গন্ধ হলেই আগে পানি খান। দেখবেন দুর্গন্ধ উধাও হয়ে যাবে। খাওয়ার পর খুব ভাল করে মুখ ধুয়ে নিন। অল্প অল্প পানি নিয়ে মুখে কুলি করে ফেলে দেবেন। এরপর একগ্লাস পানি খান। দেখবেন মুখের দুর্গন্ধ চলে যাবে পুরোপুরি।

আপেল: আপেল খেলেও মুখের দুর্গন্ধ চলে যায়। আমরা যখন আপেল খাই, তখন মুখের মধ্যে প্রচুর লালা উত্‍পন্ন হয়। তাতে ব্যাকটেরিয়া লালার সঙ্গে পরিষ্কার হয়ে যায়। তাতে মুখের মধ্যে তৈরি হওয়া গন্ধ দূর হয়ে যায়।

লবঙ্গ: এই উপায়টা হয়তো অনেকেরই জানা। এলাচ মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে দারুণ সহায়ক। যদি আপনার মুখের দুর্গন্ধ হওয়ার প্রবণতা থাকে, তাহলে ব্যাগে বা পকেটে কয়েকটি এলাচ রাখতে পারেন। মুখের দুর্গন্ধ হয়েছে বলে মনে হলেই এলাচ দানা মুখে পুরে দিন। দেখবেন মুখের দুর্গন্ধ চলে যাবে।

লেবু: ভিটামিন সি মুখের দুর্গন্ধ সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়াকে ধবংস করে দেয়। আর লেবু বা কমলালেবুতে রয়েছে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন সি। তাই মুখে দুর্গন্ধ অনুভূত হলেই লেবু বা কমলালেবু খেতে পারেন।

গ্রিন টি: এমনিতেই গ্রিন-টি স্বাস্থ্যে পক্ষে অত্যন্ত উপকারী। এতে প্রচুর পরিমানে ফ্ল্যাবনয়েড থাকে। এই ফ্ল্যাবনয়েড আসলে মুখের মধ্যেকার ব্যাকটেরিয়াকে বিনাস করে। তাই চটজলদি মুখের দুর্গন্ধ দূর হয়ে যায়।

চুইংগাম: নানান ফ্লেভারের চুইংগাম এখন দোকানে পাওয়া যায়। তবে চিনিমুক্ত চুইংগামই মুখের দুর্গন্ধ আটকাতে পারে। চুইংগাম চিবিয়ে নিলে মুখের মধ্যে লালা নিঃসৃত হয়। তাতে মুকের মধ্যেকার উত্‍পন্ন ব্যাকটেরিয়া পরিষ্কার হয়ে যায়।



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *