মস্তিষ্ক সজাগ রাখতে কেমন খাবেন?

একসাথে বেশি পরিমাণে খাবার গ্রহণ করলে সারা দিন শরীর অলস লাগবে, ঘুম ঘুম ভাব এসে শরীর নিষ্ক্রিয় করে দিতে চাইবে। কারণ বেশি পরিমাণ খাবার খেলে পরিপাকতন্ত্রে রক্তপ্রবাহের পরিমাণ বেড়ে যায়। ফরে মস্তিষ্কে রক্তপ্রবাহ কিছুটা কমে যায়। মস্তিষ্কে রক্তপ্রবাহ কমে যাওয়ার কারণে তন্দ্রা ও আলস্য এসে শরীরে ভর করে। শরীরের এই আলস্যভাব ও তন্দ্রা দূর করতে হলে দিনের তিনবারের খাবারকে অন্তত চার থেকে ছয় ভাগ করে খেতে হবে, অর্থাৎ তিনবারের খাবারকে ভাগ করে ছয়বেলা খেতে হবে। খাবারের পরিমাণ না বাড়িয়ে এবং ক্যালরি ঠিক রেখে চার থেকে ছয়বার খেতে হবে। এতে করে সারা দিন আপনি থাকবেন সতেজ, সজাগ ও সতর্ক। এভাবে প্রতিটি দিন চলতে পারলে আপনার বয়স বাড়বে ঠিকই, কিন্তু আপনার মস্তিষ্ক থাকবে অপেক্ষাকৃত কমবয়সী তরতাজা। বৃদ্ধ বয়সেও চিন্তাশক্তি থাকবে প্রখর, মেধা থাকবে ধারালো। স্মৃতিশক্তি থাকবে ঝরঝরে। মস্তিষ্ক সজীব রাখার এই প্রক্রিয়ায় গোটা শরীরই উপকৃত হবে। ক্যান্সার ও হৃদরোগের ঝুঁকি কমে যাবে, ত্বকে থাকবে প্রোজ্জ্বল লাবণ্য, শরীরে থাকবে না বাহুল্য মেদের উপস্থিতি। কাজেই সবার আগে শরীরের হেডকোয়ার্টার মস্তিষ্ক আর কম্পিউটারের সিপিইউকে গতিময় রাখার ব্যবস্থা নিতে হবে। তবেই আপনার কম্পিউটার যেমন ওপেন হতে দেরি করবে না, তেমনি আপনার মস্তিষ্কও কুয়াশায় আবৃত্ত হবে না। মস্তিষ্কের সাথে স্মৃতির যোগ ঘটাতে পারলেই আপনার মেধা ও চিন্তার বিকাশ ঘটবে সঠিকভাবে। মস্তিষ্কের গুণেই আপনি প্রস্ফুটিত হতে পারবেন আপন মহিমায়।

সুত্রঃ ইন্টারনেট।



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *