দাঁত হলুদ হলে কি করবেন?

সাধারণ তাপমাত্রায় কাঁচা দুধ একটি পাত্রে কিছুক্ষণ রাখার পর ওই দুধের ওপর যে স্তর পড়ে তদ্রুপ। অর্থাৎ হালকা হলুদ। এটা হচ্ছে দাঁতের স্বাভাবিক রঙ। তবে যাদের গায়ের রঙ কালো তাদের দাঁতগুলো সাদা দেখায়। আর গায়ের রঙ ফর্সা তাদের দাঁতগুলো দেখতে হালকা হলুদ দেখায়। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে ফর্সা বা কালো বর্ণের মানুষের দাঁতের রঙ বাইরে থেকে হালকা হলুদ বা সাদা যাই হোক না কেন, মূলত তা হালকা হলুদ কিন্তু সাদা নয়। তবে কোনো কোনো ক্ষেত্রে দাঁতের রঙ অধিকতর হলুদ হতে পারে। সেগুলোর কারণ নিম্নরূপ :

  • অতিমাত্রায় পান খেলে
  • নিয়মিত দাঁত ব্রাশ না করলে
  • গর্ভাবস্থায় শিশুর মা টেট্রাসাইক্লিন জাতীয় ওষুধ খেলে
  • শিশু বয়সে টেট্রাসাইক্লিন জাতীয় ওষুধ খেলে শিশুর দাঁতগুলো কিছুটা হলুদ হতে পারে এবং দাঁতের উপরি ভাগ (এনামেল) ক্ষয় হয়েও দাঁতের রঙ হলুদ হতে পারে।
  • অনেক সময় লৌহজাতীয় সিরাপ খেলে প্রথমে একটু হালকা হলুদ, পরে দাঁতে কালো দাগও পড়তে পারে।
  • অতিরিক্ত সিগারেট, চা এবং পানিতে অতিরিক্ত লৌহ থাকে তা পান করলেও এ ধরনের প্রতিক্রিয়া হতে পারে।

প্রতিকার
পান কম খাওয়া বা পান খাওয়ার কিছুক্ষণ পর দাঁত ব্রাশ করে ফেলা। নিয়মিত দাঁত ব্রাশ না করলে দাঁতের উপরি ভাগে ডেন্টাল প্ল্যাগ নামের এক জাতীয় আবরণ পড়েও দাঁতের হলুদ রঙ হতে পারে। এ ক্ষেত্রে দিনে দুইবার (সকালে ও রাতের খাওয়ার পর) উন্নত টুথ পাউডার বা পেস্ট দিয়ে দাঁত ব্রাশ করতে হবে।
গর্ভাবস্থায় টেট্রাসাইক্লিন জাতীয় ওষুধ খাওয়ার ফলে দাঁতের এনামেল গঠন বিঘ্নিত হয়। ফলে দাঁত হলুদ দেখায়।
এনামেল ছিদ্র ছিদ্র হয়েও দাঁত হলুদ দেখায়। অনেক ক্ষেত্রে দাঁতের উপরি ভাগ কিছুটা ভেঙে যায়। এ ক্ষেত্রে ভেঙে যাওয়া দাঁত গ্লাস আয়নোমার ফিলিং মেটেরিয়াল দিয়ে দাঁতের রঙের সাথে মিলিয়ে ফিলিং করিয়ে নিতে হয়।
বেশি ভেঙে গেলে রুট ক্যানেল করে ক্যাপ করতে হয়। আবার অনেক সময় কিছুই থাকে না। শুধু ক্যালসিয়ামজাতীয় ওষুধ খেয়ে অপেক্ষা করতে হবে।
লৌহজাতীয় ওষুধ খাওয়ার পর ভালোভাবে কুলি করতে হয় অথবা সাথে সাথে দাঁত ব্রাশ করতে হবে। এতেও যদি ঠিক না হয় তাহলে একজন অভিজ্ঞ দন্ত চিকিৎসক দ্বারা পলিশিং করিয়ে নিলে ঠিক হয়ে যাবে।
উপরে উল্লিখিত নিয়ম পালন করলে ধূমপান, চা ও পানির অতিরিক্ত লৌহ থেকে দাঁত হলুদ হওয়ার সমস্যা দূর হবে।
এ ক্ষেত্রেও নিয়মিত উন্নত টুথপেস্ট দিয়ে ১২ ঘণ্টা পর পর দাঁত ব্রাশ করতে হবে। এতেও না সারলে পলিশিং করতে হবে।

সুত্রঃ ইন্টারনেট



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *